Thursday, September 16, 2021
Homeঅনলাইন আয়অনলাইন ইনকামের সেরা উপায় - 'ইউটিউব চ্যানেল' বানান

অনলাইন ইনকামের সেরা উপায় – ‘ইউটিউব চ্যানেল’ বানান

আমরা আমাদের ফ্রি টাইমকে কাজে লাগিয়ে অনলাইনে ইনকাম করতে চায়। কিন্তু অনলাইনে এরকম সহজ ও জেনুইন ইনকাম করার জায়গা অনেক কম আছে। যে উপায়গুলি বর্তমানে আছে তার মধ্যে টপ লিস্টে আসে ইউটিউবের নাম। কিন্তু হ্যাঁ, ইউটিউবেও আজকাল অনেক প্রতিযোগিতা বেড়ে গেছে, তা হলেও এটি একটি বিশ্বস্ত জায়গা যেখানে ভালো কাজ করতে পারলে আপনার সাফল্য আসবেই। আর এর জন্য দরকার আপনার ধৈর্য, আপনার চ্যানেলটি একমাসের মধ্যেই নাও বেড়ে উঠতে পারে বা ফেমাস নাও হতে পারে। হতাশ হবেন না,আপনাকে ভালো ভিডিও বানিয়ে যেতে হবে এবং কাজ করে যেতে হবে, ধিরে ধিরে সাফল্য আসবেই।

আসুন আজ আমরা জেনে নিই ইউটিউব চ্যানেল কিভাবে সেট আপ করব এবং চ্যানেল সম্বন্ধিত কিছু তথ্য, যা আগে গিয়ে কাজে লাগবে।

(ক) ইউটিউব চ্যানেল কিভাবে সেট আপ করব:

প্রথমে আপনি আপনার জিমেইল আইডি দিয়ে www.youtube.com এ ব্রাউজার থেকে লগ ইন করুন। মোবাইল থেকে করলে সেটিংসে গিয়ে ডেস্কটপ মোড সিলেক্ট করে নিন, এতে এটি ব্যবহার করতে অনেক সুবিধা হয়। এরপর কোনায় আইকনে সিলেক্ট করলে  my channel  ড্রপ ডাউন মেনুতে দেখতে পাবেন, ওখানে ক্লিক করলে আপনার নামের একটি চ্যানেল দেখতে পাবেন। এখানে গিয়ে চ্যানেলটি কাস্টমাইজ করতে হবে। 

নতুন চ্যানেল হলে  create a channel  করে অপশনটি আসবে, ওখানে ক্লিক করে চ্যানেলের নাম, আইকন ফটো, চ্যানেল আর্ট এইসব দিয়ে শুরু করতে হবে। আর যদি দেখেন আপনার নামে অলরেডি চ্যানেল তৈরি হয়ে আসছে  তাহলে বামদিকে উপরের আইকনে ক্লিক করে চ্যানেলের নাম, ফটো এসব এডিট করা যায়। আপনি যে বিষয়বস্তুর উপর চ্যানেলটি শুরু করতে চান, চ্যানেলটির সেই অনুযায়ী নাম দিন এবং একটি ভালো ফটো বা লোগো দিন।

(খ) ভিডিও কনটেন্ট আপলোড করুন:

উচ্চমানের এবং অতি দীর্ঘ নয় এরকম খুব ভালো ভিডিও বানান ( দীর্ঘ হলেও অসুবিধা নেই কিন্তু আকর্ষণীয় হওয়া দরকার, বেশি দীর্ঘ ভিডিও অনেক সময় বোরিং হয়ে যায়, সেটা খেয়াল রাখতে হবে)। আপনি যে বিষয়ের উপর চ্যানেলটি বানিয়েছেন ভিডিওগুলো তার সাথে যেন সামঞ্জস্য থাকে ( যেমন যদি টেকনোলজির উপর চ্যানেল হয় তাহলে সেখানে রান্নার ভিডিও যেন আপলোড করা না হয়) । প্রথমে যদি আপনার ভিডিও গুলো খুব দুর্দান্ত নাও হয় বা বেশি ভিউ না আসে, হতাশ হবেন না। অনুশীলন সাফল্যের চাবিকাঠি, তাই প্রয়াস করে যাবেন পরের ভিডিওটি আগের চেয়ে আরো ভালো করার। এভাবে আপনি নিত্যনতুন শিখতে থাকবেন এবং আগের ভুলগুলো শুধরে চ্যানেলকে আরো বলিষ্ঠভাবে গড়ে তুলবেন। ভিডিও বানানোর জন্য ভালো ক্যামেরা এবং মাইক ব্যবহার করতে হবে। 

ভিডিও এডিটিং এর জন্য উন্নত সফ্টওয়্যার ( ফ্রি ডেস্কটপ  ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার ও আছে যেমন ফিল্মোরা,হিটফিল্ম এক্সপ্রেস ইত্যাদি, মোবাইলের ক্ষেত্রে পাওয়ার ডাইরেক্টর, ফিল্মোরা ইত্যাদি)। ভালো ইউটিউব ভিডিও থাম্বনেল বানানোর জন্য আছে পিক্সেল ল্যাব অ্যাপ। ভিডিও বানানোর কৌশলগুলো ভালো করে শিখুন, মোবাইল বা ক্যামেরা থেকে ভালোভাবে ভিডিও তোলার জন্য ট্রাইপড ব্যবহার করতে পারেন এবং আপনার কোনো বন্ধুর সাহায্য নিতে পারেন এছাড়াও  ভালো আলোর ব্যবস্থা করতে পারেন ভিডিও এর জন্য। নিয়মিত সময়ে ভিডিও আপলোড করলে আপনার সাবস্ক্রাইবার দের ভরসা আপনার উপর বাড়বে এবং তারা আপনার ভিডিও ঘুরে ঘুরে দেখবে, এতে আপনার সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা অবশ্যই বাড়বে। আপনার ভিডিও আপলোড করার পর প্রথমে একটি ভালো টাইটেল এবং ডেসক্রিপশন বক্সে ভিডিও এর একটি সুন্দর ডেসক্রিপশন দিন তারপর ভিডিও এর বিষয়বস্তুর উপর কি-ওয়ার্ড অনুযায়ী ট্যাগ বক্সে ট্যাগ যুক্ত করুন। যাতে, ইউটিউবে এরকম ভিডিও সম্বন্ধে কেউ সার্চ করলে আপনার ভিডিওটি দেখতে পায়।

(গ) অডিয়েন্স বা সাবস্ক্রাইবার অর্জন করুন:

আপনার চ্যানেলটি পরিচিতি লাভের জন্য আপনাকে সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা বাড়াতে হবে। এজন্য সর্বপ্রথম আপনার ভালো ভিডিও কনটেন্ট হওয়া দরকার। আর নিয়মিত আপনার ভিডিও আপলোড হওয়া দরকার। আপনার ভিডিও টি ফেসবুক, ট্যুইটার, হোয়াটসঅ্যাপ ইত্যাদি ভাবে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করুন। ভিডিও বানানোর সময় সে ভিডিও সম্পর্কে দর্শকদের কি প্রতিক্রিয়া তা কমেন্টে জানাতে বলুন, এতে দর্শকদের মধ্যে আপনার জনসংযোগ বাড়বে। ভিডিও এর মাঝখানে দর্শকদের আপনার ভিডিও টি লাইক ও চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করার কথা বলুন। আপনার দর্শকদের জন্য মাঝে মধ্যে স্পেশাল ভিডিও বানাতে পারেন, কমেন্টের প্রশ্ন ও মন্তব্যের উপর যা আপনার ভিডিও এর সাথে সম্পর্কিত। এতে আপনার চ্যানেলের উপর দর্শকদের ভরসা বাড়বে ও নতুন সাবস্ক্রাইবার পেতে সাহায্য করবে।

(ঘ) ভিডিও মনিটাইজ করুন:

আপনার চ্যানেলটি মনিটাইজ করার জন্য ১০০০ সাবস্ক্রাইবার দরকার আর আপনার সব ভিডিও মিলিয়ে গত ১২ মাসে ৪০০০ ঘন্টা দর্শকদের দ্বারা দেখা হওয়া দরকার। এটা নিয়ে চিন্তা করবেন না, ভালো ভিডিও বানান, এই দরকারী গুলি ২-৩ মাসের মধ্যেও আপনার চ্যানেলটির পূরণ হয়ে যেতে পারে। আর আপনি আপনার ভিডিও থেকে টাকা উপার্জন করতে পারেন।

এরপর যেটা করতে হবে আপনার চ্যানেলটিতে ইউটিউবকে বিজ্ঞাপন দেওয়ার অনুমতি দিতে হবে। এর জন্য আপনাকে আপনার চ্যানেলের মনিটাইজশন ট্যাবটি এনাবেল করতে হবে।
ব্রাউজার থেকে  www.youtube.com এ গিয়ে  কোনায় আইকনে গিয়ে your channel  এ ক্লিক করে customize channel ট্যাবে ক্লিক করুন।এরপর  video manager  এর একটি অপশন দেখতে পাবেন, ওখানে ক্লিক করুন।

ওখানে ক্লিক করলে একটি ড্রপ ডাউন মেনু আসবে ওখানে  other features করে একটি অপশন পাবেন। ওই অপশন থেকে  monetization অপশনটিতে গিয়ে ক্লিক করুন। আর যে স্টেপ গুলো আসবে ফলো করবেন আপনার চ্যানেলটি মনিটাইজ হয়ে যাবে। আর আপলোড করা প্রতিটি ভিডিও মনিটাইজ করে আপনি টাকা উপার্জন করতে পারবেন।

কি কি টপিকের উপর ভিডিও বানিয়ে চ্যানেলে ভালো দর্শককে আকর্ষিত করা যাবে:

এক কথায় আপনি আপনার পছন্দের যে কোনো টপিকের উপর ভিডিও বানাতে পারেন, যে বিষয় আপনার প্রিয় – যার উপর ভিডিও বানিয়ে আপনি আনন্দবোধ করবেন – সেটাই বাছবেন।তবেই এই লম্বা রেসে টিকে থাকতে পারবেন। এর জন্য কোনো ইউনিক আইডিয়া থাকলে আপনি সেটাও ব্যবহার করতে পারেন। তবে বেশ কিছু জনপ্রিয় টপিক হল রান্না, বিনোদন(নাচের ভিডিও, গান গাওয়ার ভিডিও), কমেডি ভিডিও, প্র্যাঙ্ক ভিডিও, ইন্টারভিউ ভিডিও, ভ্রমণের ভিডিও, কারুশিল্প, বডি মাসাজ ও স্পা ভিডিও, টেকনোলজি ভিডিও, মোবাইল ও ল্যাপটপ রিভিউ – আনবক্সিং ভিডিও, গেমিং ভিডিও, শর্ট ফিল্ম ভিডিও ইত্যাদি।

নীচে একটি ইউটিউব ভিডিও দিলাম, যেখান থেকে দেখতে পারেন কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল বানানো হয়::—

ভারতের কিছু ফেমাস টপ ইউটিউবার ও তাদের চ্যানেল যারা অর্থ ও নাম অর্জন করে প্রতিষ্ঠিত।

১. Bhuvaneshvar Bam (BB Ki Vines)

নিউ দিল্লির বাসিন্দা  ভুবনেশ্বর বাম যে ভুবন বাম নামেও পরিচিত তার পরিচালিত BB Ki Vines ইউটিউব চ্যানেলটি ভারতের অন্যতম জনপ্রিয় ও বৃহত্তম চ্যানেল। তিনি এই চ্যানেলটি 20 জুন 2015 সালে শুরু করেছিলেন। তার আজ সাবস্ক্রাইবারের সংখ্যা প্রায় ১৪ মিলিয়নের ও বেশি। তার ভিডিও গুলি মূলত রসাত্মবোধ ও কৌতুক ভরা হয় যা প্রধানত কম বয়সী ছেলে মেয়েদের উপর ভিত্তি করে বানানো হয়। তার এই চ্যানেলটি ২০১৬ সালে ওয়েব টিভি এশিয়া অ্যাওয়ার্ড জেতে।

২.  Amit Bhadana

অমিত ভাড়ানা তার নিজের নামে এই চ্যানেলটি ২৪ অক্টোবর ২০১২ সালে বানান। তিনিও তার ভিডিও এর মাধ্যমে কৌতুকতা তুলে ধরেন ও দর্শকদের হাসান। তার চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা প্রায় ১৬ মিলিয়ন।

৩. Sandeep Maheshwari

সন্দীপ মহেশ্বরী একজন প্রেরণাদায়ী বক্তা ও বিনামূল্যে জীবন- পরিবর্তনশীল সেমিনারের জন্য সুপরিচিত। তরুণদের উদ্বুদ্ধ ও অনুপ্রাণিত করতে তিনি নিজের এই ইউটিউব চ্যানেলটি শুরু করেন। আপনি তার চ্যানেলে ব্যক্তিত্ব বিকাশ, জনগণের বক্তব্য এবং সেমিনার সংক্রান্ত ভিডিও পাবেন। তিনি তার চ্যানেলটি ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১২ সালে খোলেন ও তার সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা প্রায় ১১ মিলিয়ন।

৪. Nisha Madhulika

নিশা মাধুলিকা তার এই রান্না সংক্রান্ত ইউটিউব চ্যানেলটি ০২ আগস্ট ২০০৯ সালে খোলেন এবং তার সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা প্রায় ৭.৫ মিলিয়ন। তিনি খুব সহজে তার এই চ্যানেলে রান্না করার পদ্ধতি শেখান। এর আগে, ২০০৭ সালে তিনি একটি রান্নার ব্লগ খুলেছিলেন যেটাও খুব বিখ্যাত হয়েছিল। প্রথম দিনগুলোতে তার স্বামী তার ইউটিউব ভিডিও বানাতে সাহায্য করত, এখন তার ৫ জনের একটি দল আছে যারা তাকে সহায়তা করে।

৫. Gaurav chowdhary(Technical Guruji)

টেকনিক্যাল গুরুজী নামের এই চ্যানেলটি গৌরভ চৌধুরী ১৮ অক্টোবর ২০১৫ সালে খোলেন এবং তার বর্তমান সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা প্রায় ১৩ মিলিয়ন। প্রযুক্তিগত শিক্ষার উপর তৈরি ভিডিও গুলি সহজ হিন্দি ভাষায় কম্পিউটার, ইন্টারনেট, স্মার্টফোন ইত্যাদি বিষয়ে তার দর্শকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।

৬. Sanam Puri ( Sanam)

সনম পুরী, সমর পুরী, কেশব ধরার ও এস ভেন্কি একটি ইউটিউব চ্যানেল শুরু করেন যার নাম সনম। এর বর্তমান সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা প্রায় ৬.৪ মিলিয়ন এবং এটি ০২ অগাস্ট ২০১২ সালে শুরু হয়। এটি মূলত একটি ব্যান্ড, এখানে বিভিন্ন গান লিখে তা গেয়ে ভিডিও তৈরি করে বা বিভিন্ন আঞ্চলিক বা হিন্দি গানের নতুন সংস্করণ তৈরি করে।

৭.  Tanmay Bhatt(All India Bakchod)

অল ইন্ডিয়া বকচোদ নামে এই চ্যানেলটি ভারতের অন্যতম জনপ্রিয় ইউটিউব চ্যানেল যা তন্ময় ভট্ট ৩০ জানুয়ারি ২০১২ সালে খুলেছিলেন এবং তার বর্তমান সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা প্রায় ৩.৫ মিলিয়ন। তন্ময় ভট্ট হাস্যরসাত্মকের মাধ্যমে বিতর্কিত বিষয়গুলো নিয়ে স্ট্যান্ড আপ কমেডি করেন। প্রথমে তন্ময় ভট্ট ও গুরসিমরন খাম্বা দুজনে এটা শুরু করেছিল তারপর তাদের টিমে রোহন জোশী ও আশীষ শাক্য নামে দুজন স্ট্যান্ড আপ কমেডিয়ান যোগ দেন।

৮.Ajay Nagar ( CarryMinati)

অজয় নাগর ক্যারি মিনাটি  নামের এই ইউটিউব চ্যানেলটি ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৪ সালে খোলেন এবং বর্তমান তার সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা প্রায় ৭.৯ মিলিয়ন। মুভি ক্লিপস, গেমস, ফটো ইত্যাদিতে টিপ্পনি করে দর্শকদের হাস্যরসাত্মক ভাবে বিনোদন করে থাকেন।

৯. Kabita Singh ( kabita’s kitchen)

কবিতা সিং তার এই রান্নার চ্যানেলটি ০৭ অক্টোবর ২০১৪ সালে শুরু করেন এবং তার বর্তমান সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা প্রায় ৫.৫ মিলিয়ন। তিনি খুব সহজ পদ্ধতিতে কিভাবে প্রতিদিনের খাবার থেকে শুরু করে পার্টি বা উৎসব – অনুষ্ঠানের জন্য খাবার বানাবেন তা শেখান। দেশি খাবার বানানোর কৌশলের সাথে সাথে বিদেশী খাবার বানানোর রেসিপি ও ভিডিও তে পোস্ট করেন।

১০.  Arunabh Kumar (The Viral Fever)

TVF বা The Viral Fever এই চ্যানেলটি ১৪ মার্চ ২০১১ শুরু হয় এবং এর বর্তমান সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা প্রায় ৬.৪ মিলিয়ন। টিভিএফ ব্যাচেলরদের উপর ফোকাস করে অনেক ভিডিও বানিয়েছেন এবং অনেক মজার মজার ওয়েব সিরিজ ও শর্ট ফিল্ম টাইপের ভিডিও পোস্ট করে থাকেন।

বন্ধুরা নিরলস পরিশ্রম সবাইকেই একদিন সাফল্য পেতে সাহায্য করে। সাফল্য কতো বড়ো বা ছোট হবে সেটা সময় বলবে কিন্তু ধৈর্য্য রেখে বুদ্ধিমত্তার সাথে পরিশ্রম করলে সাফল্য একদিন আসবেই।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular