Thursday, September 16, 2021
Homeসরকারি স্কিমJai Bangla Pension Scheme | জয় বাংলা পেনশন প্রকল্প

Jai Bangla Pension Scheme | জয় বাংলা পেনশন প্রকল্প

Jai Bangla Pension Scheme | জয় বাংলা পেনশন প্রকল্প । রাজ্য সরকার তফসিলি বন্ধু (পেনশন প্রকল্প), তফসিলি জাতি (এসসি) এবং তপশিলী উপজাতির (এসটি) জন্য জয় জোহর (পেনশন প্রকল্প) নামে দুটি নতুন ওল্ড এজ পেনশন প্রকল্প চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

রাজ্য সরকার সমস্ত নতুন ও পুরনো ওল্ড এজ পেনশন স্কিম, বিধবা পেনশন স্কিম ও প্রতিবন্ধী পেনশন স্কিম – সমস্ত পেনশন স্কিমকে একই ছাতার তলায় নিয়ে এসেছেন। রাজ্য সরকার পরিচালিত এই পেনশন স্কিমগুলি ২০২০ সালে জয় বাংলা পেনশন প্রকল্প নামে প্রাধান্য লাভ করেছে।

জয় বাংলা প্রকল্পটি ২০২০ সালের ১ লা এপ্রিল থেকে কার্যকর হবে।

তপশিলি জাতি এবং তপশিলি উপজাতি জন্য নতুন বয়স্ক পেনশন প্রকল্প

জয় বাংলা প্রকল্প ২০২০ এর অধীনে চালু হওয়া দুটি নতুন পেনশন প্রকল্প হ’ল তপসিলি বন্ধু তফসিলি জাতির জন্য (এসসি) এবং তপশিলীর উপজাতির (এসটি) জন্য জয় জোহর।

তফসিলি বন্ধু ও জয় জোহর নামে এই দুটি নতুন প্রকল্পের নির্দেশিকা নিচে দেওয়া হল:

(১) কভারেজ

সমস্ত এস সি ও এস টি ব্যক্তিরা যাদের বয়স 60 বছরের বেশি তারা এই প্রকল্পে আবেদন করতে পারেন এবং প্রতিমাসে প্রায় 1000 টাকা পেনশন হিসেবে পাবেন।

(২) প্রকল্পে আবেদন

  • তপশিলি বন্ধু প্রকল্প তপশিলি জাতির যে কোন ব্যক্তির জন্য প্রযোজ্য হবে।
  • জয় জোহর প্রকল্পটি তপশিলি উপজাতির যেকোনো ব্যক্তির জন্য প্রযোজ্য হবে।

(৩) নির্বাচিত হওয়ার যোগ্যতা

  • ব্যক্তিটিকে ০১.০১.২০২০ অনুসারে 60 বছর বয়স বা তার বেশি হতে হবে।
  • ব্যক্তিটিকে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের একজন বাসিন্দা হতে হবে।
  • ব্যক্তিটি অন্য কোন সামাজিক সুরক্ষা পেনশন প্রকল্পের আওতায় সুবিধাভোগী নন বা অন্য কোনো সরকারি পেনশন বা সংস্থার থেকে পেনশন গ্রহণ করেন না।

DOWNLOAD JAI BANGLA APPLICATION FORM

(৪) আবেদনের পদ্ধতি

প্রকল্পের আওতাধীন সুবিধাভোগী ব্যক্তি অনলাইন বা অফলাইন ফর্মের মাধ্যমে জয় বাংলা প্রকল্পে আবেদন করতে পারেন। অনলাইন আবেদন করার জন্য ব্যক্তিটিকে jaibangla.wb.gov.in পোর্টালে যেতে হবে।

নিম্নলিখিত অফিসগুলোকে এই পেনশন প্রকল্পের আবেদন পত্র বিনামূল্যে পাওয়া যাচ্ছে:

  • ব্লক উন্নয়ন অফিসারের অফিস থেকে। যদি ব্যক্তিটি গ্রামীণ অঞ্চলে থাকেন।
  • মহকুমা অফিসের কার্যালয় থেকে যদি ব্যক্তিটি পৌরসভা কর্পোরেশন এলাকায় বসবাস করে থাকেন।
  • কমিশনারের অফিস থেকে যদি ব্যক্তিটি কলকাতা পৌর কর্পোরেশনের অধীনে বসবাস করে থাকেন।

(৫) পেনশন প্রকল্পের আবেদন পত্র কোথায় জমা দিতে হবে

  • আবেদনকারীর গ্রামে বসবাস করে থাকলে সে ক্ষেত্রে ব্লক উন্নয়ন অফিসে বা বিডিও অফিসে।
  • আবেদনকারী পৌরসভা অঞ্চলে বসবাস করে থাকলে মহকুমা অফিসারের অফিসে বা এসডিও অফিসে।
  • আবেদনকারী কলকাতা পৌর কর্পোরেশনের অধীনে বসবাস করে থাকলে সেক্ষেত্রে কমিশনার, কলকাতা পৌর কর্পোরেশন।

(৬) নোডাল বিভাগ

তফসিলি বন্ধু প্রকল্প টি অনগ্রসর শ্রেণী কল্যাণ বিভাগ দ্বারা পরিচালিত হবে এবং যশোহর প্রকল্প টি উপজাতি উন্নয়ন অধিদপ্তর দ্বারা পরিচালিত হবে।

(৭) আবেদনপত্রের যাচাইকরণ

  • সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রাপ্ত সমস্ত আবেদন পত্র যোগ্যতার মানদণ্ডের সাথে জেলা ম্যাজিস্ট্রেট দ্বারা যাচাই করা হবে।
  • এক্ষেত্রে দুটি ডকুমেন্টের প্রয়োজন, একটি বয়সের প্রমাণ পত্র এবং অপরটি জাতির প্রমাণ পত্র।
  • যাদের এখনও পর্যন্ত জাতি প্রমাণপত্র নেই, তারাই প্রকল্পের আবেদন করতে পারেন। কিন্তু অনুমোদন হওয়ার আগে তাদেরকে জাতির প্রমাণপত্র বিডিও/ এসডিও/ কমিশনার কে দিতে হবে কারণ তার বিবরণ সংশ্লিষ্ট অফিস কর্তৃক আপলোড করতে হবে।

আরও পড়ুন – Snehalaya । স্নেহালয় আবাস প্রকল্প

আবেদনপত্রের প্রসেসিং

  • আবেদনকারীরা এই প্রকল্পের সুবিধা নেওয়ার জন্য যোগ্য কিনা তা যাচাই করার জন্য নির্ধারিত ফরমে সমস্ত আবেদনকারীদের আবেদনপত্র দিতে হবে এবং তা বিডিও, এসডিও কমিশনার- কলকাতা পৌর কর্পোরেশন যথাযথভাবে যাচাই করবেন।
  • যে সমস্ত ফর্মগুলি জমা দেওয়া হয়েছে তার মধ্যে যেগুলি যোগ্য, সেগুলি বিডিও, এসডিও বা কলকাতা পৌর কর্পোরেশনের কমিশনার jaibangla.wb.gov.in পোর্টালে আপলোড করবেন।
  • গ্রামাঞ্চলে ক্ষেত্রে বিডিও ও পৌরসভা এলাকার ক্ষেত্রে এসডিও ডিজিটাল আবেদনপত্র রাজ্য পোর্টালের মাধ্যমে ডিস্ট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেট এর কাছে যোগ্য ব্যক্তির নাম সুপারিশ করবেন। এরপর ডিস্ট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেট এটি নোডাল বিভাগে অর্থাৎ অনগ্রসর শ্রেণী কল্যাণ বিভাগ বা উপজাতি উন্নয়ন অধিদপ্তরের কাছে রাজ্য পোর্টালের মাধ্যমে প্রেরণ করবেন।
  • কলকাতা পৌর কর্পোরেশনের ক্ষেত্রে কমিশনার রাজ্য পোর্টালের মাধ্যমে নোডাল ডিপার্টমেন্টে সরাসরি যোগ্য ব্যক্তিদের নাম সুপারিশ করবেন।
  • নোডাল বিভাগ WBIFMS পোর্টালের মাধ্যমে সরাসরি সুবিধাভোগী ব্যক্তির ব্যাংক অ্যাকাউন্টে পেনশন এবং পেমেন্ট অনুমোদন করবেন। রাজ্য পোর্টাল jaibangla.wb.gov.in ও WBIFMS কে একসাথে জুড়ে দেওয়া হবে যাতে প্রতি মাসের পয়লা তারিখে সুবিধাভোগী ব্যাক্তিরা পেনশন পেতে থাকেন।

পেনশনের পেমেন্ট

সুবিধাভোগী ব্যক্তিদের পেনশনের টাকা রাজ্য সরকার থেকে সরাসরি তাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার করা হবে।

পেনশন পাওয়া ব্যক্তির মৃত্যুর সূচনা

  • পেনশন প্রাপ্ত ব্যক্তির মৃত্যুর সূচনা পাওয়ার পর এই জাতীয় তথ্যের যথাযথ যাচাইয়ের পর বিভাগ পেনশন বন্ধের পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।
  • পেনশন প্রাপ্ত কারি ব্যক্তির মৃত্যুর পর তার যদি বকেয়া পেনশন থাকে তাহলে তা আবেদন পত্রে উল্লেখিত মনোনীত ব্যক্তিকে প্রদান করা হবে।

তোমার স্কুলগুলির মাসিক পেনশন বৃদ্ধি

রাজ্য সরকার বর্তমানে সামাজিক সুরক্ষা পেনশন স্কিম এর অধীনে প্রচুর পরিমাণে পেনশন স্কিম বাস্তবায়ন করেছে – যেমন বার্ধক্য, বিধবা ও প্রতিবন্ধী পেনশন প্রকল্প। মানবিক পেনশন প্রকল্প যা মহিলা ও শিশু উন্নয়ন বিভাগের অধীন। বার্ধক্য বিধবা ও প্রতিবন্ধী পেনশন স্কিম পঞ্চায়েত ও গ্রামীণ উন্নয়ন এবং নগর উন্নয়ন ও পৌর বিভাগের আওতায় আসে। বার্ধক্য পেনশন স্কিম এসটি (জয় জোহর) ব্যাক্তিদের জন্য উপজাতি উন্নয়ন বিভাগের অধীনে এবং বার্ধক্য পেনশন স্কিম এসসি ( তপশিলি বন্ধু) ব্যাক্তিদের জন্য অনগ্রসর শ্রেণী কল্যাণ বিভাগের অধীনে। কৃষক বার্ধক্য ভাতা কৃষি বিভাগের অধীনে, মৎস্যজীবী বার্ধক্য ভাতা মৎস্য বিভাগের অধীনে, MSME&T বিভাগের অধীনে কারিগর এবং তাঁতাদের বার্ধক্য পেনশন এবং I&CA বিভাগের অধীনে লোক প্রসার প্রকল্প।

মানবিক, বার্ধক্য পেনশন ভাতা এসটি ব্যক্তি(জয় জোহর),কৃষক বার্ধক্য ভাতা, মৎস্যজীবী বার্ধক্য ভাতা, কারিগর ও তাঁতি বার্ধক্য পেনশন এবং লোকপ্রসার প্রকল্প – শুধুমাত্র এই প্রকল্পগুলি মাসিক 1000 টাকা করে ভাতা পেয়ে থাকেন।

বার্ধক্য ভাতা, বিধবা ও প্রতিবন্ধী ভাতা – যারা মহিলা ও শিশু বিকাশ বিভাগের অধীনে আসে তারা মাসে 750 টাকা করে পেনশন পেয়ে থাকেন।

বার্ধক্য ভাতা, বিধবা ও প্রতিবন্ধী ভাতা যারা পঞ্চায়েত ও গ্রামীণ উন্নয়ন এবং নগর উন্নয়ন ও পৌর বিভাগের অধীনে আছেন তারা মাসে 600 টাকা করে পেনশন পেয়ে থাকেন।

রাজ্য সরকার এখন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে, সমস্ত পেনশনের ক্ষেত্রে একই হারে মাসিক পেনশন অর্থাৎ 1000 টাকা করে দেওয়া হবে।

পেনশন স্কিমগুলি মার্জ করার সিদ্ধান্ত

রাজ্য সরকার মহিলা ও শিশু উন্নয়ন বিভাগ দ্বারা পরিচালিত প্রতিবন্ধী পেনশন স্কিম থেকে মানবিক প্রকল্পের সাথে এবং উপজাতি উন্নয়ন বিভাগের বার্ধক্য পেনশন প্রকল্পের সাথে জয় জোহর স্কিম টিকে একীভূত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

জয় বাংলা প্রকল্প 2020 এখন নিম্নলিখিত পেনশন প্রকল্পগুলি কে অন্তর্ভুক্ত করবে

  • তফসিলি বন্ধু
  • জয় জোহর
  • মানবিক
  • লোকপ্রসার প্রকল্প
  • বার্ধক্য এবং বিধবা পেনশন প্রকল্প (W&CD)
  • বার্ধক্য এবং বিধবা পেনশন প্রকল্প (P&RD, UD&MA)
  • কৃষক বার্ধক্য ভাতা
  • মৎস্যজীবী বার্ধক্য ভাতা
  • কারিগর ও তাঁতি বার্ধক্য ভাতা

প্রকল্পের পরিচালনা

রাজ্য ফাইন্যান্স ডিপার্টমেন্ট jaibangla.wb.gov.in পোর্টাল টি সেটআপ ও পরিচালনা করবেন। এবং জয় বাংলা প্রকল্পের কার্যক্রম পরিচালনা ও সময়োপযোগী বাস্তবায়ন নিশ্চিত করবে।

যে সমস্ত পেনশন প্রকল্প গুলি আছে তারা যে বিভাগের অধীনে আসে, সেই বিভাগগুলি এক্ষেত্রে নোডাল বিভাগ হিসেবে কাজ করবে। এবং তারা সুবিধাভোগী ব্যক্তিদের পেমেন্ট অনুমোদন ও প্রদান সম্পর্কিত কাজের দেখভাল করবে।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular